২০২৪ সালে অনলাইনে জন্ম সনদ চেক করুন। Online Jonmo Nibondhon Check

 


আসসালামু আলাইকুম বন্ধুরা আপনার জন্ম নিবন্ধন অথবা জন্ম সেরা নদ অনলাইন করা হয়েছে কিনা খুব সহজেই আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোন অথবা কম্পিউটার দিয়ে চেক করে নিতে পারেন। আপনারাই যাতে অতি সহজেই জন সনদ স্মার্টফোন অথবা কম্পিউটার দিয়ে চেক করতে পারেন তা সহজ উপায়ে আলোচনা করব। 

জন্ম সনদ কি?

জন্ম সনদ হলো একজন মানুষের জন্মের তথ্য সরকারিভাবে নিবন্ধনের একটি দলিল। এটি একটি আইনি নথি যা একজন ব্যক্তির জন্মের তারিখ, স্থান, লিঙ্গ, পিতামাতার নাম, জাতীয়তা এবং স্থায়ী ঠিকানা উল্লেখ করে।

জন্ম সনদ একটি মানুষের ব্যক্তিগত পরিচয়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এটি একজন ব্যক্তির নাগরিকত্ব, বয়স, শিক্ষাগত যোগ্যতা, চাকরির সুযোগ, ভোটার তালিকাভুক্তি, সম্পত্তি কেনা-বেচা, বিবাহ, বিবাহবিচ্ছেদ, সন্তানের জন্ম নিবন্ধন, পাসপোর্ট, ভিসা, ট্রেড লাইসেন্স, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা, করদাতা শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) প্রাপ্তি ইত্যাদি ক্ষেত্রে প্রয়োজন হয়।

বাংলাদেশে, জন্ম নিবন্ধন আইন, ২০০৪ অনুসারে, বাংলাদেশে জন্মগ্রহণকারী প্রত্যেক ব্যক্তির জন্ম নিবন্ধন করা বাধ্যতামূলক। জন্ম নিবন্ধন করা শিশুর অধিকারও বটে।জন্ম নিবন্ধন করতে হলে, শিশুর জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে বাবা-মা বা অভিভাবকের নিকটবর্তী ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশনের জন্ম নিবন্ধন অফিসে আবেদন করতে হবে। আবেদনের সাথে জন্মের সনদপত্র, পিতামাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, দুইজন সাক্ষীর স্বাক্ষর এবং নির্ধারিত ফি জমা দিতে হবে।

অনলাইনে জন্ম সনদ চেক করার উপায়

প্রথমে আপনারা যেকোনো একটি ব্রাউজারে চলে যাবেন। এবং ব্রাউজিকে সার্চ করবেন https://everify.bdris.gov.bd/  এখন আপনারা জন্ম সনদ চেক করার মূল ওয়েবসাইটে চলে যাবেন। 

 

ওয়েব সাইটে আসার পরে দেখবেন বাট রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ওখানে আপনি আপনার ১৭ ডিজিটের যেই পার্ট রেজিস্ট্রেশন নাম্বারটি আছে সেটি দিয়ে দিবেন এবং আপনার ডেট অফ বার্থ দিয়ে দিবেন তারপর নিচে থাকা ক্যাপচারটি পূরণ করবেন এবং সার্চ করবেন। এবং ইতিমধ্যে আপনার জন্ম সনদ যদি অনলাইন হয়ে থাকে তাহলে আপনার সামনে আপনার জন্ম নিবন্ধনের পুরো বিস্তারিত ডিটেলস চলে আসবে আর যদি এখনো আপনার জন্ম সনদ অনলাইন করুন করা না হয় তাহলে  আপনার সামনে  কোন কিছু বিস্তারিত হবে না। 

জন্ম সনদ ডাউনলোড 

উপরের নিয়মগুলো ফলো করে আপনারা সঠিক নিয়মে ক্যাপচা পূরণ করে সার্চ করলে আপনার ডিটেলস প্রদর্শন করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য প্রদর্শিত হবে। "পিডিএফ ডাউনলোড" লিঙ্কে ক্লিক করে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের একটি পিডিএফ কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

উদাহরণস্বরূপ, আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বর 123456789012 এবং আপনার জন্ম তারিখ 2000-01-01 হলে, আপনি নিম্নলিখিত তথ্য লিখবেন:

  • জন্ম নিবন্ধন নম্বর: 123456789012
  • জন্ম তারিখ: 2000-01-01

ক্যাপচা পূরণের পর "সার্চ" বাটনে ক্লিক করলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য প্রদর্শিত হবে। "পিডিএফ ডাউনলোড" লিঙ্কে ক্লিক করে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের একটি পিডিএফ কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

দ্রষ্টব্য:

  • আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরটি অবশ্যই ১৭ ডিজিটের হতে হবে।
  • আপনার জন্ম তারিখটি অবশ্যই YYYY-MM-DD এই ফরম্যাটে হতে হবে।
  • যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরটি ১৬ ডিজিটের হয়, তাহলে শেষ ডিজিটের আগে একটি শুন্য যোগ করে ১৭ ডিজিট করতে পারেন।

সম্ভাব্য সমস্যা সমাধান:

  • যদি আপনি "সার্চ" বাটনে ক্লিক করার পরে "কোনও ফলাফল পাওয়া যায়নি" বার্তা পান, তাহলে আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরটি ভুল হতে পারে।
  • যদি আপনি "ক্যাপচা সঠিক নয়" বার্তা পান, তাহলে ক্যাপচাটি সঠিকভাবে পূরণ করুন।

আপনার যদি জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করতে কোনও সমস্যা হয়, তাহলে আপনি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদ বা পৌরসভায় যোগাযোগ করতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন করা কেন প্রয়োজন

জন্ম নিবন্ধন করা একটি নাগরিকের অধিকার এবং কর্তব্য। জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে একজন মানুষের জন্ম, বয়স, পরিচয় নাগরিকত্বের প্রমাণ পাওয়া যায়। এটি একজন মানুষের জীবনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি দলিল।

  • নাগরিকত্ব নিশ্চিতকরণ: জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে একজন মানুষের নাগরিকত্ব নিশ্চিত হয়। জন্ম নিবন্ধন ছাড়া একজন ব্যক্তি নাগরিকত্বের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন।
  • পরিচয় প্রদান: জন্ম নিবন্ধন একজন মানুষের পরিচয় প্রদান করে। এটি একজন মানুষের ব্যক্তিগত পরিচয়, বয়স, লিঙ্গ, জন্মস্থান, বাবা-মায়ের নাম ইত্যাদি তথ্য প্রদান করে।
  • সরকারি সেবা গ্রহণ: জন্ম নিবন্ধন ছাড়া অনেক সরকারি সেবা গ্রহণ করা যায় না। যেমন, পাসপোর্ট, ভোটার আইডি কার্ড, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি, চাকরিতে নিয়োগ, জমি রেজিস্ট্রেশন, ব্যাংক হিসাব খোলা ইত্যাদি ক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন।
  • জনসংখ্যা ব্যবস্থাপনা: জন্ম নিবন্ধন জনসংখ্যা ব্যবস্থাপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি হাতিয়ার। এটি জনসংখ্যার আকার, বয়স কাঠামো, লিঙ্গ অনুপাত ইত্যাদি তথ্য প্রদান করে। এই তথ্যের ভিত্তিতে সরকার জনসংখ্যা নীতি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে পারে।

নাম দিয়ে জন্ম সনদ যাচাই

আপনারা চাইলে আপনাদের নাম দিয়ে আপনার রাজ্য আপনাদের জন্ম সনদ যাচাই করতে পারেন সে ক্ষেত্রে এটি আপনারা অনলাইনে অবশ্যই করতে পারবেন না তার জন্য আপনারা আপনাদের নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদের কাছ থেকে এই সেবাটি নিতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার ওয়েবসাইট কোনটি

জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের জন্ম মৃত্যু নিবন্ধন অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট everify.bdris.gov.bd ব্যবহার করা হয়। এই ওয়েবসাইটে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করতে পারবেন।



Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url